বেনিয়ম রুখতে হেল্পলাইন চালু করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন

SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

তরুনা মণ্ডল

শুক্রবার উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলের প্রকাশের পরই ধীরে ধীরে শুরু হতে চলেছে বিভিন্ন কলেজে ভর্তির প্রক্রিয়া। তবে তার আগেই বৃহস্পতিবার কলেজে ভর্তির ব্যাপারে একাধিক পদক্ষেপের কথা জানিয়ে দিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। গত বেশ কয়েক বছর ধরে কলেজের গেটে দাঁড়িয়ে প্রকাশ্যে আসন বিক্রির ঘটনা সামনে এসেছে। যদিও তা নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপও গ্রহণ করেছে রাজ্য সরকার এবং বিশ্ববিদ্যালয়। তবে এইবার এবিষয়ে আরও সাবধানী হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এনিয়ে সহ উপাচার্য দীপক কর জানিয়েছেন, এ বছর একটি হেল্পলাইন নম্বর খোলা হচ্ছে। যেখানে কোনও সমস্যা, অভিযোগ থাকলে সরাসরি পড়ুয়া এবং অভিভাবকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন। একই সঙ্গে কলেজ পরিদর্শক বিভাগকে সতর্ক থাকার উপদেশ দিয়েছেন। কারণ একটি বিশেষ দল তৈরি করা হচ্ছে। যাদের কাজ হবে কলেজে কলেজে ঘুরে ভর্তি প্রক্রিয়া তদারকি করা। প্রয়োজনে ব্যবস্থা নেওয়া। দীপকবাবু আরো জানিয়েছেন, সংবাদপত্র অথবা টেলিভিশন মিডিয়াতে কলেজে ভর্তি সংক্রান্ত বেনিয়মের যদি কোনও খবর প্রকাশিত হয়, সে ব্যাপারেও বিশ্ববিদ্যালয় পদক্ষেপ করবে। সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদনে প্রকাশিত সমস্যা বা অনিয়ম সম্পর্কে কলেজ পরিদর্শক প্রথমে সংশ্লিষ্ট কলেজের ব্যাখ্যা চাইবে। প্রয়োজনে পদক্ষেপ করবে।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

সূত্রের খবর অনুযায়ী এইবছর জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ করে ক্লাস শুরু করতে বদ্ধপরিকর বিশ্ববিদ্যালয়। কারণ তাঁদের বক্তব্য, ওই সময়ের মধ্যে ক্লাস শুরু না করা গেলে, সিবিসিএস পদ্ধতি অনুসারে ছ’মাস পর নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সেমেস্টার নেওয়া সম্ভবপর নয়। তাছাড়াও নতুন ব্যবস্থায় ক্লাসের সংখ্যাও বাঁধা আছে। কাজেই উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশের পর দ্রুত ভর্তি প্রক্রিয়া সেরে নিতে না পারলে অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডারে গোলমাল হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা কর্তৃপক্ষের। এর আগে ১৮ জুনের মধ্যে মেধাতালিকা প্রকাশের কথা বলা হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে। যদিও তখন অবশ্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আশা করেছিলেন ৬ জুনের মধ্যে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশিত হয়ে যাবে। কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিকের ফল ৮ তারিখ বেরনোয় ১৮ -এর বদলে ২০ জুনের মধ্যে মেধাতালিকা প্রকাশ করার কথা বলা হয়েছে। অন্যদিকে ২২ জুন থেকে ভর্তি প্রক্রিয়া চালু করারও নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

বিগত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন কলেজে ভর্তির যে সিন্ডিকেট চলছে, তা নিয়ে সরব শিক্ষা মহলের অনেকেই। নির্ধারিত আসনের তুলনায় অতিরিক্ত ছাত্র ভর্তি করিয়ে লক্ষাধিক টাকার এই খেলা রুখতে গত বছরই শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশে কলেজ ও তার প্রতিটি বিষয় ধরে ধরে আসন সংখ্যা বেঁধে দেয় বিশ্ববিদ্যালয়। এ বারও বিশ্ববিদ্যালয়ের বেঁধে দেওয়া আসন সংখ্যার বেশি ছাত্র ভর্তি করালে রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে না, এমনটাই জানানো হয়েছে। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার একটি হেল্পলাইন চালু করেছে। এইবার বিশ্ববিদ্যালয়কেন্দ্রিক একটি হেল্পলাইনও চালু করার সিদ্ধান্ত নিলেন কর্তৃপক্ষ। এখন কলেজ কতৃপক্ষের দাদাগিরি তথা বেনিয়ম রুখতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকল্পনা কতখানি স্বার্থক হয়, সেটাই এখন দেখার বিষয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *