নির্বাচনী অঙ্কে শোভনকে নন-ফ্যাক্টর বলে উড়িয়ে দিল শ্বশুরমশাই

বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদনে কী নতুন সমস্যায় জড়াবেন শোভন?
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

তিথি রায় চৌধুরী

মহেশতলা উপনির্বাচনে বিরোধীদের সকল আশায় জল ঢেলে দিল মহেশতলা উপনির্বাচনের সম্ভাব্য জয়ী তৃণমূল – কংগ্রেসের প্রার্থী দুলাল দাস।তৃণমূল -কংগ্রেসের প্রার্থী হওয়া ছাড়াও তিনি হলেন মহেশতলা পুরসভার চেয়ারম্যান ও অন্যদিকে তিনি কলকাতা কর্পোরেশনের মেয়র শোভন চ্যাটার্জীর শ্বশুরমশাই।

প্রসঙ্গত, দুলাল দাসের মেয়ে রত্নার সাথে মেয়র শোভনের বিবাহ – বিচ্ছেদ এর মামলা আদালত পর্যন্ত গড়ায়,এমনকি তাদের সম্পর্কের অবনতি নিয়েও অনেক জলঘোলা হয়।তাছাড়াও রত্না চ্যাটার্জীকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়ে সংবাদ শিরোনামে ওঠে মেয়র।এর পর থেকেই গণমাধ্যমে চেনা মুখ হিসাবে পরিচিত হয় এই পরিবার।এই হিসেব কে সামনে রেখেই বিরোধীরা আশা করেছিলেন যে,”শ্বশুর -জামাইয়ের পারিবারিক বিবাদ ও তিক্ত সম্পর্কের প্রভাব পড়বে ভোট রাজনীতিতে।”কিন্তু, সকল ধারণাকে নসাৎ করে দিয়ে মহেশতলা র উপনির্বাচনের তৃণমূল – কংগ্রেস প্রার্থী দুলাল দাস,১৭ রাউন্ড গণনার পর ৫৫ হাজার ৫৮১ ভোটে এগিয়ে রইলেন।কমিশন সূত্রে খবর,৯০ হাজার ভোটে সম্ভাব্য জয়ী প্রার্থী দুলাল দাস।এছাড়া,দ্বিতীয় স্থানে আছে বিজেপি প্রার্থী সুজিত ঘোষ ও তৃতীয় স্থানে আছে কংগ্রেস সমর্থিত বামফ্রন্ট প্রার্থী প্রভাত চৌধুরী।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

সকল পারিবারিক বিবাদ ঘটিত তিক্ত সম্পর্ককে নসাৎ করে দিয়ে জয়ী হলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দুলাল দাস।এদিন দুলালবাবু মন্তব্য করেন যে,”মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নে সামিল হতেই এলাকার সকল মানুষ তাকেই জয়যুক্ত করেছেন,এজন্য তিনি সকল মানুষকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।”

তবে,মহেশতলা উপনির্বাচনের এই ফলাফলে জামাই শোভন কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি বলেই এখনো পর্যন্ত জানা গেছে।তাছাড়া উপনির্বাচনের প্রচার চলাকালীন সময়েও জামাই শোভনকে একবারেই জন্য ও দেখা যায় নি। এদিন মেয়র শোভনকে ব্যাকফুটে ফেলে রেখে উপনির্বাচনের ফলাফলের নিরিখে এগিয়ে গেলেন তৃণমূল প্রার্থী দুলাল দাস।নির্বাচনে জয়ের সাথে সাথে নিজের জামাইকে ”নন -ফ্যাক্টর” হিসাবেও দাবি করেন তিনি।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *