অমর প্রেমের সাক্ষী তাজমহল

প্রেম দিবস এ মিলিনিয়াম
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

সায়নি মন্ডল : ইতিহাসের তোয়াক্কা না করেই নিজের প্রেমকে অমর রাখতে তাজমহল বানিয়েছেন বৃদ্ধ পোস্টমাস্টার। আলিগড়ের অবসরপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার ফয়জল হাসান করাদি।দেশ স্বাধিন হওয়ার কয়েক বছর পরই মামার মেয়ে রুকসাতের সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে বিয়ে করেন ১৪ই জুন ১৯৫৩।

অমর প্রেমের সাক্ষী তাজমহল
ছবি প্রতীকী

কম বয়সি হওয়ায় রান্নার কাজ ঠিকমতো না পাড়ায় নিজের হাতেই সব শিখিয়ে পাক্কা ঘরণী করে তুললেন স্ত্রীকে। কোরান শরিফ ছাড়া কিছুই পড়তে না পাড়ায় ফয়জল উর্দু গল্পের বই,নভেল, গোয়েন্দা গল্প এনে দিতেন স্ত্রীকে।কম উপার্জন থাকায় সাড়ে পাঁচ আনার থার্ড ক্লাস টিকিটেই ফিল্ম দেখা শুরু।

সুখের সংসার হয়েও স্ত্রী নি:সন্তান হওয়ায় আবার বিয়ে করতে বলা হলেও রাজি হয়নি। পরপর দুবার ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ায় মৃত্যু হয় রুক্সাতের। সারা পৃথিবি তাকে যেন মনে রাখে এটা ভেবে ফয়জল 15 ফুট লম্বা ও 15 ইঞ্চ চওড়া তাজমহল বানাতে শুরু করে।রুকসাতের কফিনবন্দি দেহ নিজের কাধেই এনেছিলেন তিনি।ফয়জল জানান রুকসাতের পাশের খালি জায়গাটি তিনি নিজের জন্য রেখেছেন যাতে মৃত্যুর পর রুকসাতের পাশে পরম নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *