পশু চিকিৎসক দের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেবে কাউন্সিল

SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

স্বর্ণালী মজুমদার

চিকিৎসায় আধুনিকতা বেশ কিছু বছর ধরে লক্ষ করা যাচ্ছে। যদিও এই আধুনিকতার প্রয়োগ শুধুমাত্র মানুষের চিকিৎসার ক্ষেত্রেই দেখা গেছে। তবে এবার থেকে এই সুযোগ পেতে চলেছেদ বন্য প্রানীরাও। এমনিই উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য ভেটেনারি কাউন্সিল। এবার থেকে বন্য প্রানীরা অসুস্থ হলে বা জখম হলে চিকিৎসার ব্যাবস্থা করবে সরকারি পশু চিকিৎসক। জানা গেছে, এবিষয়ে পশু চিকিৎসকদের বিশেষ প্রশিক্ষন দেবেন বিশেষজ্ঞরা।

পশু চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণ শিবির
ছবি প্রতীকী

সম্প্রতি প্রানিসম্পদ দপ্তরের তরফে ঝাড়গ্রামে একটি ২ দিনের কর্মশালার আয়োজন করা হয়। যেখানে পশ্চিম মেদিনিপুর, পুরুলিয়া, ঝাড়্গ্রাম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, উত্তর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা , হাওড়া এর ৪৫ জন আধিকারিক উপস্থিত ছিলেন। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চুড়ামণি মানাতো, স্থানীয় বিধায়ক ডঃ সুকুমার হাসদা, কাউন্সিলের সভাপতি ডঃ জহর চক্রবর্তী। এছাড়াও জঙ্গলমহলের বাসিন্দাদের উপস্থিতি ও ছিলো চোখে পরার মতো।

উল্লেখ্য জঙ্গলমহলে একটি বাঘের মৃত্যু কে কেন্দ্র করে বহু বিতর্ক দেখা দিয়েছিলো। সেই ঘটনায় সোচ্চার ও হয়েছিলেন পশু প্রেমিকরা। এছাড়াও মাঝে মধ্যেই লোকালয়ে যেমন হাতির হানায় ক্ষয়ক্ষতি লক্ষ করা যায়, ঠিক তেমন ই আঘাত ও আসে বন্য প্রাণীদের উপর ও। কিন্তু সব ক্ষেত্রে প্রাণী চিকিৎসার সঠিক বন্দোবস্ত না থাকায় সমস্যার সৃষ্টি হয়। বন্য প্রাণী সংরক্ষণ কে মাথায় রেখে তাই এবার পশু পাখীদের সঠিক চিকিৎসা দিতে উদ্যত রাজ্য।

এদিন অনুষ্ঠান সম্পর্কে রাজ্য ভেটেরিনারি কাউন্সিলের সভাপতি ডঃ জহর জানান, সরকারী পশু চিকিৎসক দের অধীকাংশ গৃহ পালিত পশুর চিকিৎসা করেন কারণ তাদের বন্য প্রাণী চিকিৎসার প্রশিক্ষণ নেই। এর ফলে বন্য প্রাণীরা অদুস্থ হলে চিকিৎসক খুঁজে পাওয়া মুশকিল হয়। সে ঘাটতি মেটাতে সরকারী পশু চিকিৎসক দের এই বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কাউন্সিল। পুরো অনুষ্ঠানটির তদারকি করেন ডঃ গুরুচরণ দত্ত। তিনি জানান ঝাড়গ্রামের পর পরবর্তী কর্মসূচি উত্তরবঙ্গে নেওয়া হবে

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *