পোস্ট এডিট : মুকুলের ‘বিশ্ববাংলা’ বানে ব্যাকফুটে তৃণমূল

মুকুল বাবু! এ কী কান্ড!
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

দীপন ঘোষাল : একদা তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ড এখন ঘুম কাড়ছেন শাসকদলের শীর্ষ নেতৃত্বের। দল ছেড়ে তৃণমূলের প্রধান বিরোধী বিজেপিতে যোগদানের পর থেকেই মুকুল রায়ের নিশানায় থেকেছে বিশ্ববাংলা।১০ই নভেম্বর প্রথম বিজেপির মঞ্চ থেকেই প্রাক্তন দলের বিরুদ্ধে রনং দেহি চরিত্র ধারণ করেছেন মুকুল রায়।

পোস্ট এডিট
ছবি প্রতীকী

তাঁর বিজেপিতে যোগদানের প্রথম দিন থেকেই বিশ্ব বাংলার মালিকানার প্রসঙ্গে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। ১০ই নভেম্বরের জনসভাতে বিশ্ব বাংলা কে অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের কোম্পানি বলে অবিহিত করেন তিনি। আর তার পর থেকে রাজনৈতিক তর্জায় ঘুরপাক খাচ্ছে বিশ্ব বাংলা ব্র্যান্ড।সেই বক্তব্যের সূত্র ধরেই ৩০শে নভেম্বর বিজেপির রাজ্য দফতরে সাংবাদিক সম্মেলন করে আরো চাঁচাঁছোলা ভাষায় মুখ্যমন্ত্রী ও অভিষেক বন্দোপাধ্যায়কে আক্রমণ শানান তিনি। গত ২৯শে নভেম্বর বিধানসভায় বিশ্ব বাংলা লোগো নিজের বলে দাবি করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী।তার জবাবে মুকুল রায় তুলে ধরেন ২০১৩ র ২৬শে নভেম্বর অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের বিশ্ব বাংলার এপ্লিকেশনকে।যা অভিষেক বন্দোপাধ্যায় প্রত্যাহার করেছেন চলতি বছরের ১৩ই নভেম্বর। ফলে বিশ্ব বাংলার প্রকৃত মালিকানা নিয়ে আবারো প্রশ্ন তোলেন তৃণমূলের একদা ‘ক্রাইসিস ম্যানেজার’। এর পাশাপাশি তিনি প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী যদি লোগো রাজ্যকে ব্যবহারের জন্যই দিয়ে থাকেন তবে তার এগ্রিমেন্ট নাই কেন বা থাকলে মুখ্যমন্ত্রী তা প্রকাশ্যে আনছেন না কেন।

প্রসঙ্গত বিজেপি র ক্ষমতা ক্রমশ বৃদ্ধি পেকেও তা যে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের মতো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য যথেষ্ট নয় তা জানেন খোদ বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব।ফলে মুকুল রায়কে সামনে রেখে রাজনৈতিক লড়াই যে অধিক ফলপ্রসূ হবে তা বলাই বাহুল্য। খাতায় কলমে মুকুল রায়ের কোনো পদ না থাকলেও তাকে সামনে রেখেই যে রাজ্য বিজেপি লড়াইয়ের ছক কোষবে তা মানছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তবে মুকুল রায়ের বিজেপিতে যোগদানের পর যেমন মুকুল অনুগামীতে বিজেপি র ভোটব্যাংক বাড়বে তেমনি মুকুল যোগ প্রভাব ফেলছে নিচু তলার বিজেপি কর্মীদের মধ্যেও। এমতাবস্থায় মুকুল রায়ের বিশ্ব বাংলা প্রসঙ্গে মন্তব্যে কার্যত ব্যাকফুটে তৃণমূল। বিশেষত ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামা সরকারি আমলা ও তৃণমূল নেতাদের বক্তব্য না মেলায় বিশ্ব বাংলা প্রসঙ্গ শিরোনামে।তবে শুধুমাত্র বিশ্ব বাংলাই নয়, তৃণমূলের ‘অরাজক’ শাসন নিয়েও সুর চড়ান মুকুল।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *