দলের চাপে চৈত্রেই “বৈশাখী হীন” শোভন।

দলের চাপে চৈত্রেই "বৈশাখী হীন" শোভন।
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

নিজস্ব সংবাদদাতা : ভালোবাসা, সম্পর্ক, বন্ধুত্ব নাকি রাজনীতি? হয়তো জীবনে এমন অনেক কঠিন মোড় থাকে যেখানে দুই এর মধ্যে এক টা কে বেছে নেওয়া কার্যত অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়। আত্মত্যাগ করতে হয় অনেকক্ষেত্রেই, কখনো খুশী মনে কখনো বাধ্য হয়েই। কোলকাতার মহা নাগরিক এর ক্ষেত্রে সম্ভবত দ্বিতীয় টাই ঘটছে। স্ত্রীর সাথে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা ও বান্ধবী বৈশাখীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা নিয়ে আর হয়তো খবরের শীরোনাম আসবে না কারণ ইতি ঘটতে চলেছে শোভন-বৈশাখী পর্বের।

দলের চাপে চৈত্রেই "বৈশাখী হীন" শোভন।
দলের চাপে চৈত্রেই “বৈশাখী হীন” শোভন।

বিগত বেশ কিছু দিন ধরে সংবাদমাধ্যমে ও রাজনৈতিক মহলে বেশ চর্চার বিষয় ছিলো শোভন-বৈশাখী সম্পর্ক। যদিও দলের তরফে সেটা স্বাভাবিক ভাবে মেনে নেওয়া হয়নি। অন্যদিকে শোভন চট্টোপাধ্যায় মিডিয়ার সামনে খোলাখুলি জানিয়েছিলেন, “বৈশাখীর উপর কোনো আঘাত এলে আমার সবটুকু দিয়ে রক্ষা করবো।”

শোভন বৈশাখী সম্পর্ক নিয়ে অখুশী ছিলেন স্বয়ং তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। সম্প্রতি সকলের সামনে তিনি মেয়র কে জিজ্ঞেস করেন “তুই কি শুধু প্রেম ই করছিস নাকি কাজ ও করছিস?” সম্প্রতি অতীতে দলের একাধিক বৈঠকে শোভনের অনুপস্থিতি জল্পনা বাড়িয়েছিলো। শোভনের আচরণে দলের ভাবমুর্তি নষ্ঠ হছে বলেই মত ছিলো দলের ই একাংশের।

এর পর কড়া হাতে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে নামে তৃণমূল। দলের উচ্চ নেতৃত্বের তরফে শোভন চ্যাটার্জী কে ফোন করে জানানো হয় “হয় বৈশাখীর সঙ্গ ত্যাগ করুন, নচেৎ দল ছাড়ুন”। সুত্রের খবর মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নির্দেশেই এই বার্তা পৌছে দেওয়া হয় মহানাগরিককে। যদিও তারপর ই শোভন জানান দল তার কাছে সবার উপরে। দলের জন্য যে কোনো স্বার্থ ত্যাগ করতে তিনি প্রস্তুত। অন্যদিকে বৈশাখী দেবীও এই খবর শোনার পর দল ও শোভনের ভবিষ্যৎের জন্য শুভেচ্ছা বার্তা দিয়েছেন।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *