রাজ্যের শান্তি ও সম্প্রীতির লক্ষ্যে পথে বুদ্ধিজীবীরা।

রাজ্যের শান্তি ও সম্প্রীতির লক্ষ্যে পথে বুদ্ধিজীবীরা।
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

সুরজিৎ খাঁ : রাজ্যের সম্প্রীতি ও শান্তির লক্ষ্যে মিছিলে সোচ্চার সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে বুদ্ধিজীবীরা। মূলত ধর্ম নিয়ে রাজনীতি বন্ধ করে শান্তি ফেরানোর দাবিতে এই মিছিল। রবিবার ধর্মতলা থেকে রবীন্দ্র সদন পর্যন্ত তারা পা মেলান এই মিছিলে। মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন কবি শঙ্খ ঘোষ , বিমান বসু, সুজন চক্রবর্তী ও প্রমুখ বিশিষ্ট ব্যাক্তি থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ।

মূলত হিংসার প্রতিবাদে শান্তির মিছিলে রাম নাবমিকে কেন্দ্র করে পশ্চিমবঙ্গে যে হিংস্র সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষের সৃষ্টি হয়েছে ও রাজনৈতিক উস্কানিমূলক আস্ফালন তৈরি হয়েছে তা গত অর্ধ শতকেও এরাজ্যে দেখা যায়নি বলেই মত মিছিলে পা মেলানো বিশিষ্ঠদের। রাম নাবমিকে কেন্দ্র করে মিছিলে অস্ত্র হাতে দেখা যায় রাজনৈতিক দলের স্থানীয় নেতাদের । আর সেই নিয়েই আতঙ্কিত বুদ্ধিজীবী মহল।

রাজ্যের শান্তি ও সম্প্রীতির লক্ষ্যে পথে বুদ্ধিজীবীরা।
রাজ্যের শান্তি ও সম্প্রীতির লক্ষ্যে পথে বুদ্ধিজীবীরা।

এদিন ধর্মতলা থেকে রবীন্দ্র সদন পযন্ত এই মিছিলে কোনোরকম দলীয় পতাকা দেখা যায়নি। যদিও বা রাজনীতির অনেক চেনা মুখ দেখা গেছে এই মিছিলে। এই সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক মিছিলের প্রসঙ্গে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, “এই রাজ্যটাকে বাঁচাতে হবে, রাম কার এ নিয়ে একটা অপদার্থ কম্পিটিশন চলছে। প্রতিযোগিতামূলক সাম্প্রদায়িকতা বিবেকে বুদ্ধিজীবীরা রাস্তায় নেমেছে ও সাধারণ মানুষকে আহ্বান জানিয়েছেন তাতে সাধারণ মানুষেরা সারাদেবে তা তো স্বাভাবিক। আমরাও শুধু মিছিলে যোগদান করেছি।”

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

মিছিলে বিভিন্ন গানবাজনার মধ্যে দিয়ে মানুষকে সচেতনতার বার্তা দিতে চেয়েছেন বুদ্ধিজীবীরা। যদিও মিছিলটি আগাগোড়াই ছিলো বিজেপির সাম্প্রদায়িক নীতির বিরুদ্ধে তবুও রাজ্য প্রশাসনের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে চায়নি মিছিলে পা মেলানো বুদ্ধিজীবীরা।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *