তারা মায়ের স্নান দর্শন থেকে বঞ্চিত হবেন পুণ্যার্থীরা

তারা মায়ের স্নান দর্শন থেকে বঞ্চিত হবেন পুণ্যার্থীরা
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

ওয়েব ডেস্ক: দেড় হাজারেরও বেশি বছরের প্রথা ভেঙে রীতির বদল ঘটল তারাপীঠে। তারা মায়ের স্নান দর্শন থেকে বঞ্চিত হলেন পুণ্যার্থীরা। আগামী সোমবার থেকে এই নিয়ম কার্যকরীর কথা জানানো হয়েছে মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে। শুক্রবার মন্দিরের সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় ও ধ্রুব চট্টোপাধ্যায় একটি সাংবাদিক বৈঠকে একথা জানান।

তারা মায়ের স্নান দর্শন থেকে বঞ্চিত হবেন পুণ্যার্থীরা
তারা মায়ের স্নান দর্শন থেকে বঞ্চিত হবেন পুণ্যার্থীরা

শাস্ত্রমতে, প্রায় দেড় হাজার বছর আগে বণিক জয় দত্ত সওদাগর তারাপীঠ মহাশশ্মানের শ্বেতশিমুল গাছের নিচ থেকে মা তারার শিলামূর্তি উদ্ধার করেন। তারপর সেখানেই সেটি প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। পরে রানি ভবানী মায়ের বর্তমান মন্দির প্রতিষ্ঠা করে মা তারাকে শ্মশান থেকে সেই মন্দিরে নিয়ে যান। সেখানেই নিত্যসেবা করতেন মন্দিরের সেবাইত , সুযোগ পেতেন পুণ্যার্থীরাও।

তবে এবার বন্ধ করা হল মায়ের স্নান দর্শন। এ প্রসঙ্গে তারাময় মুখোপাধ্যায় বলেন, “চিরাচরিত প্রথা মেনে ভোরবেলা মা তারাকে স্নান করিয়ে রাজবেশ পড়িয়ে মন্দিরের দরজা পুণ্যার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হত। পুণ্যার্থীরা মনে করলে নিজে হাতে মাকে স্নান করাতে পারতেন এতদিন। কিন্তু, দিনের পর দিন তারাপীঠে পুণ্যার্থীদের চাপ বেড়ে যাওয়ায় ওই নিয়ম বাতিল করা হল।”

মন্দির কমিটির এই সিদ্ধান্তে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অনেকেই বঞ্চিত হচ্ছেন মনে করলেও, অনেকেই বিষয়টিকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

তবে হঠাৎই এমন সিদ্ধান্তের কারণ জানতে চাইলে তারাময়বাবু বলেন, “পুণ্যার্থীরা নিজের হাতে স্নান করানোর ফলে প্রায় দেড় দু’ঘণ্টা সময় ব্যয় হত। ততক্ষণ বন্ধ থাকত মন্দিরের দরজা। বহু পুণ্যার্থীকে এর জন্য লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হত। পুণ্যার্থীদের জন্য স্নান দর্শন বন্ধ করলে সেই সময় অনেকটা সাশ্রয় হবে। সোমবার থেকে মন্দিরের নির্দিষ্ট সেবাইত মায়ের স্নান করাবেন। তারপরই মন্দিরের দরজা খুলে দেওয়া হবে।”

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *