ট্রেন্ড নয়, অভিনব উদ্যোগ, ‘গাছের সাথে সেলফি’

নিজস্ব চিত্র
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

তরুনা মণ্ডল

মাদার্স ডে তে মা’র সাথে ফাদার্স ডে তে বাবার সাথে, এরকম বিশেষ বিশেষ দিনে বিশেষ মানুষের সাথে সেলফি তুলে সেটাকে সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করা এটা এখনকার সময়ে একটা বিশাল ট্রেন্ড। নাহলেই সাধারণের মনে প্রশ্ন জাগে যে সমাজ কি তাকে আদেও মেনে নেবে! এক্ষেত্রেও শুরুতে হয়তো এটাই মনে হয়েছিল যে এবার হয়তো বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে মার্কেটে নতুন ট্রেন্ড এসেছে। কিন্তু আসল ব্যাপারটা কিন্তু আদতে তেমনটা নয়।

নিজস্ব চিত্র
নিজস্ব চিত্র

৫ জুন, মঙ্গলবার বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন ভাবে পালিত হল ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস’। কেউ নতুন গাছ লাগানোর শিক্ষা দিল, আবার কেউ বা পড়ালো পরিবেশ সচেতনতা বৃদ্ধির পাঠ। তবে এই বছর কিছুটা ব্যতিক্রমী শিক্ষা দিল উত্তর কলকাতার একটি দল ‘সংবেদন’। এদিন উত্তর কলকাতার হেদুয়া পার্কে ৮ থেকে ৮০ বিভিন্ন বয়সী প্রায় ২০০ মানুষের উপস্থিতিতে সূচিত হল এক অভিনব প্রতিযোগিতা, ‘গাছের সাথে সেলফি’।

পরিবেশ রক্ষা বিষয়টি ঠিক কি তা কিন্তু এই পৃথিবীর কমবেশি সব মানুষই জানেন। তবে বাড়তি সচেতনার তাগিদে ৫ জুন এই বিশেষ তারিখটি প্রতি বছর বেছে নেওয়া হয়। প্রতি বছর এই দিনে বিশেষত বিভিন্ন গাছ লাগানো হয় ঠিকই, কিন্তু আগামী বছর এই দিন আবার ফিরে আসতে আসতে সেই গাছগুলোর অবস্থার খোঁজ আর কেউ নেয় না। আর খোঁজ নিলেও দেখা যায় যে আগের বছরের বড়জোর ২০ শতাংশ গাছ হয়তো পরের বছর সুস্থ অবস্থায় মেলে। বাকি ৮০ শতাংশের খবর ততদিনে ইতি হয়ে যায়। এভাবে কিন্তু গাছ গুলি লাগানোর আসল উদ্দেশ্য পুরোপুরি সাধিত হয় না।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

কাজেই এই বছর সংবেদনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে নতুন গাছ শুধু লাগানোই নয়, ভবিষ্যতে সেগুলিকে বাঁচিয়ে রাখার তাগিদে তাঁরা এমন একটি উদ্যোগে সামিল হয়েছেন। সেইজন্য এদিন উপস্থিত ২০০ জনের হাতে তারা বিভিন্ন ফুল ও ফলের গাছ তুলে দেয়। এরপর তাদের আসল উদ্দেশ্য সাফল্যমণ্ডিত করতে তারা গাছের সাথে সেলফি প্রতিযোগিতা’র ঘোষণা করেন। এবিষয়ে সংবেদনের তরফে বিশিষ্ট সমাজসেবী শমীত সাহা জানিয়েছেন, অনেক মানুষকে তাঁরা পাশে পেয়েছেন। প্রচুর মানুষ এই প্রতিযোগিতার প্রতি আগ্রহও দেখিয়েছেন। শুধু গাছ দেওয়াই নয়, হেদুয়া অঞ্চলে বেশ কয়েকটি বড় বড় গাছও লাগানো হয়েছে বলে জানান তিনি। বিভিন্ন বয়সী মানুষের সংগমে এই প্রতিযোগিতা এবছর ডিসেম্বর অবধি চলবে। আর এর মধ্যে যিনি সবথেকে ভাল গাছের পরিচর্যা করতে পারবেন সংস্থার তরফ থেকে তাঁকে সংবর্ধিত করারও আশ্বাস দিয়েছেন শমীতবাবু।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *