দিলীপ কে সরিয়ে রাজ্য সভাপতি হচ্ছেন মুকুল?

প্রার্থী সংকটে নাজেহাল বিজেপি
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

ওয়েব ডেস্ক

পঞ্চায়েত ভোটে পাশ করেছেন মুকুল রায়। করা হতে পারে বিজেপির রাজ্যসভাপতি। সোমবার রাত আটটা নাগাদ হঠাৎ তলবে দিল্লি গেলেন মুকুল।

পঞ্চায়েত নির্বাচনে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সাহায্য ছাড়াই মুকুল যে ভাবে আদালত থেকে ভোট ময়দান সর্বত্র সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং জঙ্গল মহলে সাফল্যে খুশি মোদী শাহ জুটি। শুধু তাই নয় শান্তিনিকেতনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে দেখা করার যে পরিকল্পনা নিয়েছিলেন মুকুল রায় তা নজর কেড়েছেন মোদীর।

আসন্ন ত্রিপুরা নির্বাচনেও কোণঠাসা রইলেন মুকুল
মুকুল রায়

বাংলায় বিজেপির রাজ্য থেকে জেলা ও বুথ স্তরে নেতৃত্বের অভাব রয়েছে। দীলিপ ঘোষ, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়, সায়ন্তন বসু, প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দীপাঞ্জন গুহ, দেবশ্রী চৌধুরী, বিশ্বপ্রিয় চৌধুরী, রাহুল সিনহা, শমীক ভট্টাচার্য, লকেট চট্টোপাধ্যায়, জয় বন্দ্যোপাধ্যায়দের মত নেতাদের কোনও রাজনৈতিক পরিপক্কতা নেই।

বিজেপির আইটি সেল ও বিভিন্ন জেলা বিজেপি নেতৃত্বের দাবি মুকুল রায়, জয় বন্দ্যোপাধ্যায়, লকেট চট্টোপাধ্যায়দের নাম শুনলে সাধারণ মানুষকে সভায় ডাকতে হয় না। এমনকি বুথ স্তরের নেতাদের চাহিদা এই তিন ত্রয়ীর। দীলিপ ঘোষ সহ বাকিদের সভায় দলের কর্মীদেরই সেধে সভায় নিয়ে আসতে হয়। বিজেপি নেতৃত্বের আরও দাবি, পঞ্চায়েত ভোটে জঙ্গল মহলে মুকুল, জয় ও লকেটের সভায় বেশি জমায়েত হয়েছিল। সেখানে বাকিদের সভায় মাঠ ভরেনি ।

পঞ্চায়েত নির্বাচনে শাসকের অত্যাচারে অতিষ্ঠ ও আক্রান্ত কর্মীরা পাশে পাননি দীলিপ ঘোষদের। সুত্রের দাবি, রাজ্য সভাপতিকে ফোন করলে তাঁর আপ্ত সহায়ক ফোন ধরেন নাম দেখে। এমনকি দীলিপ ঘোষের আপ্তসহায়কের বিরুদ্ধে নানা বিষয়ে অভিযোগ দিল্লিতে পৌঁছেছে। দীলিপ ঘোষের সাফল্য যদি রাজ্য বিজেপির শ্রী বৃদ্ধি হয় তাহলে বড়ো ব্যর্থতা হল সংগঠন তৈরি করতে না পারা, দলীয় কোন্দল না মেটানো।

বাংলার মানুষ তৃণমূলের ওপর বিরক্ত হয়ে বিজেপি মুখি হলেও বিজেপির বাংলা নেতৃত্ব ভোটার মুখি হচ্ছে না। অনেকেই আবার তৃণমূলের সাথে সমঝোতার রাজনীতি করছেন। এই সমস্ত রিপোর্ট দিল্লি থেকে আসা শতাধিক বিজেপির গোয়েন্দারা মোদী শাহের কাছে পাঠিয়েছেন।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে , বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব রাজনীতিতে কার্যত অপদার্থ।  লোকসভায় ভালো ফল পেতে হলে মুকুলেই ভরসা করতে হবে নইলে ফল ফলবেনা। মুকুল রাজ্যসভাপতি হলে বিক্ষুব্ধ তৃণমূল এবং মুসলিম ভোট বিজেপির দিকে ঝুঁকবে বলে দাবি করা হয়েছে এই রিপোর্টে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য বিজেপির খোলনলচে বদলের সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা ভাবছে বিজেপি নেতৃত্ব। 

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *