নিজ রাজ্যেই কী ফিকে হচ্ছে মোদী ম্যাজিক?

NSG এর সদস্য হতে দেখা গেল ভারত সহ মেক্সিকোকেও ;আপত্তি চীন ও পাকিস্তানের।
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

ওয়েব ডেস্ক: গুজরাটের মাটিতে দাঁড়িয়ে যতই নিজেকে ‘ভূমিপুত্র’ বলুন না কেন গুজরাত নিয়ে মোদী যে নিজেও অস্বস্তিতে রয়েছেন, তা একপ্রকার স্পষ্ট।নিজ রাজ্য ভূমিতে দাঁড়িয়ে সভা করছেন নরেন্দ্র মোদী, অথচ চেয়ার ভরছে না মোদী ম্যাজিকে। পরপর চারটি সভা, অথচ প্রত্যেকটাতেই কমবেশী একই হাল। এক সময়ে যেখানে মানুষের ভিড় চেয়ারের থেকে বেশী হতো সেখানে ভরছে না চেয়ার। এমন চিত্র উপস্থাপনে প্রশ্ন উঠছে তবে কী নিজের রাজ্যেই শক্তি হারাচ্ছেন ‘ভূমিপুত্র’? আর এমন চিত্রে সিংহাসন লাভে একপ্রকার আশাবাদী তা বলাই যায়। 

নিজ রাজ্যেই কী ফিকে হচ্ছে মোদী ম্যাজিক?
ছবি প্রতীকী

২৭শে নভেম্বর সৌরাষ্ট্রের জসদনে গেরুয়া শিবিরের যে সভার আয়োজন করা হয় সেখানে ১২,০০০ জনগণের বসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। তবে ফাঁকা রয়ে গিয়েছিল প্রায় ৮০০ চেয়ার।

খালি সভার এই চিত্র এখন সেখানেই সীমাবদ্ধ নয়, রীতিমতো ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেদিনের ওই সভায় পাঁচটি বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থীদের হয়ে প্রচার করছিলেন মোদী। অথচ সভা খালিই পড়ে রইল।

তবে এবিষয়ে শক্তি ক্ষয়ের কথা কিন্তু একপ্রকার অস্বীকার করলেন তা বলাই যায়। বিজেপির বক্তব্য, “প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার জন্য অনেক লোককে এসজিপিজি-র পক্ষ থেকে আটকে দেওয়া হয়েছে বলেই জনগণের ভিড় কম হয়েছে। কারণ যে সকল জনগণের কাছে দেশলাই, সিগারেট বা তামাকজাতীয় দ্রব্য ছিল তা নিয়ে ঢুকতে দেওয়া হয়নি তাঁদের। ফলত তাঁরা বাইরেই দাঁড়িয়ে ছিলেন।”

প্রথম দুটি সভার হাল দেখে ধারির সভায় আগেই দশ হাজার চেয়ার কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তড়িঘড়ি। ৪০ হাজার থেকে ৩০ হাজারে নামানোর পরে হাল দেখে আরও অর্ধেক করা হয়। তাতেও পুরো ভরেনি। অগত্যা সভার আগে গোড়া থেকেই চেয়ার কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

তবে এমন চিত্রের পরে ভরা সভায় এ বারে যে কোনও মুহূর্তে কেঁদে ফেলতে পারেন মোদী সে ব্যাপারে একপ্রকার নিশ্চিত সাট্টা বাজার। এবিষয়ে হার্দিক পটেলও ভবিষ্যদ্বাণী করে বলেছেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদী যে কোনও পর্যায়ে যেতে পারেন। ভোটারদের মন টানতে কেঁদেও ফেলতে পারেন।’’ 

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *