কর্ণাটকে সরকার গড়ার ফ্যাক্টর নির্ধারণে মমতা

এক কোটি কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি মমতার
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

নিজস্ব সংবাদদাতা

মঙ্গলবার কর্ণাটকের ফলাফলে নজর ছিল গোটা দেশের৷ বিজেপির জয়ের ধারা অব্যহত থাকবে নাকি ২০১৯-র কথা মাথায় রেখে নিজেদের জমি মজবুত করতে পারবে টিম রাহুল সে নিয়ে চলেছে বিস্তর জল্পনা। যদিও ফলাফলে আসন সংখ্যার নিরিখে বিজেপি এগিয়ে থাকলেও সরকার গঠনে কংগ্রেস কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছে নরেন্দ্র মোদীর দলকে৷

কর্ণাটকা বিধানসভার ২২৪ আসনের (এর মধ্যে ২টি আসনে ভোট হয়নি) সরকার গড়তে দরকার ছিল কমপক্ষে ১১২টি আসন৷ কিন্তু এই ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে পারেনি বিজেপি। বিজেপি-র আসন সংখ্যা ১০৪। অন্যদিকে, কংগ্রেস ৭৮ ও জেডিএস মিলে আসন সংখ্যা দাঁড়ায় ১১৬ সেখানে যৌথ ভাবে সরকার গঠনে এগিয়ে কংগ্রেসই। তার সঙ্গে দু’জন নির্দল প্রার্থীর সমর্থনে মোট ১১৮ টা আসন নিয়ে সরকার গড়তে চলেছিলো কংগ্রেসই৷ জেডিএস কে সাথে ধরে রাখতে কং এর তরফে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেবগৌড়ার পুত্র কুমারস্বামী কে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে প্রস্তাব দেওয়া হয়৷ কিন্তু কুমারস্বামীকে নিয়ে হঠাৎই বিদ্রোহ শুরু করে কংগ্রেসের লিঙ্গায়েত সম্প্রদায়ের বিধায়করা৷ আবার জেডিএসের বেশ কয়েকজন বিধায়ক জানিয়েছেন, তাঁরা কংগ্রেস নয় বিজেপির সঙ্গে সরকার গঠনে আগ্রহী৷ এই পরিস্থিতিতে কিছুটা হলেও সুবিধাজনক জায়গায় রয়েছে ইয়েদুরেপ্পার বিজেপি৷ যদি সেই বিক্ষুদ্ধ বিধায়ক দের সমর্থন তারা আদায় করতে পারে তবে সহজেই ম্যাজিক সংখ্যা ছুঁয়ে কং-জেডিএস কে ছাপিয়ে যাবে তারা। কিন্তু ২০১৯-এর কথা ভেবে কোনওভাবেই কর্ণাটক হাতছাড়া করতে চায় না কংগ্রেস৷

এই জটিল পরিস্থিতি তে আসরে নামলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কর্ণাটকে বিজেপি কে রুখতে তিনি স্বয়ং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা কর্ণাটকের জেডিএস নেতা দেবেগৌড়াকে ফোন করেন। তাকে জয়ের শুভেছা জানানোর পাশাপাশি অনুরোধ করেন তার দলের সব বিধায়ক যেন কংগ্রেস এর ই পাশে থেকে বিজেপি কে প্রতিহত করতে পারে সে ব্যাপারে নিশ্চিত করতে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, আগামিবছের লোকসভা নির্বাচনের আগে কর্ণাটক নিয়ে মমতার এই তৎপরতা বিশেষভাবে তাৎপর্যপূর্ণ।

কর্ণাটকের ফলাফলের নিরিখে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বিকেলেই ট্যুইট করে জানান কং জেডিএস জোট হলে এই ফলাফল হতো না। ভোট কাটাকাটির সুযোগে বিজেপি বেশী আসনে পেয়ে সরকার গড়তে যে মরিয়া সেই আঁচ পেয়েই বিজেপি কে রুখতে তৎপর তৃণমূল সুপ্রিমো। তিনি আরো বলেন কংগ্রেসের বোঝা উচিৎ তারা একা ২০১৯-এ বিজেপি কে রুখতে পারবে না তাই আঞ্চলিক দল গুলো কে গুরুত্ব দিয়ে সঙ্ঘবদ্ধ লড়াই করে প্রতিহত করতে হবে বিজেপি-র মতো সাম্প্রদায়িক শক্তিকে।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *