ছেলে নির্দোষ দাবী কালিকাপ্রসাদের চালকের মায়ের

ছেলে নির্দোষ দাবী কালিকাপ্রসাদের চালকের মায়ের
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

নিজস্ব সংবাদদাতা: “আমার ছেলে নির্দোষ। তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে। আমার ছেলেকে ফাঁসানো হচ্ছে। ওঁরা সেলেব্রেটি বলেই এমনটা করা হচ্ছে।” এমনটাই অভিযোগ করলেন কালিকাপ্রসাদের মৃত্যুর ঘটনায় ধৃত গাড়়ির চালক অর্ণব রাওয়ের মা করবীদেবী। এদিকে অর্ণবের দু’দিনের পুলিশ হেপাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

ছেলে নির্দোষ দাবী  কালিকাপ্রসাদের চালকের মায়ের
স্বর্গীয় কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্য

গতকাল গুড়াপ থানার পুলিশ কসবার বাড়ি থেকে ইনোভা গাড়ির চালক অর্ণব রাওকে গ্রেপ্তার করে। আজ তাঁকে চূঁচুড়া জেলা জর্জ কোর্টে তোলা হলে অর্ণবের আইনজীবী দিব্যেন্দু ভট্টাচার্য তাঁর জামিনের আবেদন করেন। বিচারক তাঁর জামিন নামঞ্জুর করে দু’দিনের পুলিশ হেপাজতের নির্দেশ দেন। আদালতের রায় শুনেই অর্ণবের মা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

আদালতে অর্ণব সাংবাদিকদের বলেন, “দুর্ঘটনার দিন ভোর ছ’টা নাগাদ আমাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় ব্যান্ডের এক শিল্পী। সেদিন প্রথম ওই ইনোভা গাড়িটি চালাই।”

অর্ণবের মা বলেন, গত চার বছর ধরে তাঁর ছেলে গাড়ি চালাচ্ছে। দুর্ঘটনার দিন তাঁর পাশের সিটেই বসেছিলেন কালিকাপ্রসাদ। তিনি বারংবার ঘুমিয়ে পড়ায় তাঁকে অনেকবার ডেকে দেওয়া হয়, তিনি কিছুক্ষণ হোয়াটসঅ্যাপ করে ঘুমিয়ে পড়েন। এতে অর্ণবের মনসংযোগে ব্যাঘাত ঘটেছিল। এরপর পিছন থেকে একটি ট্রাক তাঁকে ধাক্কা মারলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রথমে রাস্তার বাঁদিকের গার্ডওয়ালে ধাক্কা লাগে। পরে সামনের ডানদিকের চাকা খুলে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারায় গাড়িটি। গাড়ির গতিবেগ ছিল ঘন্টায় ৫৫ থেকে ৬০ কিলেমিটার। তাঁকে ইচ্ছাকৃতভাবে ফাঁসানো হয়েছে।

অর্ণবের আইনজীবী দিব্যেন্দু ভট্টাচার্যর কথায়, “৭ই মার্চ দুর্ঘটনার পর গত ১১ মার্চ কালিকাপ্রসাদের স্ত্রী রীতচেতা গোস্বামী গুড়াপ থানায় অভিযোগ দায়ের করে গাড়ির চালক অর্ণব রাও এর বিরুদ্ধে। গুড়াপ থানা ঘটনার পর স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে মামলা দায়ের করেনি। অথচ ১১ মার্চ অভিযোগ দায়ের করলেন। এটি পুরোপুরি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। চালক অর্ণবকে ফাঁসানো হয়েছে।”

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *