রাতের শহরে দৌরাত্ম্য বাড়ছে দুষ্কৃতীদের

পুলিশের গুলিতে মৃত ১০ মাওবাদী
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

ওয়েব ডেস্ক: রাতের কলকাতায় আতঙ্ক ছড়ানোর চেষ্টা। ঘটনাস্থান এন্টালি থানার মতিঝিল এলাকা। রাত প্রায় বারোটা। হঠাৎই আতঙ্ক এলাকায়। স্থানীয় দুষ্কৃতী টিপু তার দলবল নিয়ে এলাকায় চড়াও হয়ে আতঙ্ক ছড়ানোর লক্ষ্যে বোমা ছুঁড়তে শুরু করেন।

রাতের শহরে দৌরাত্ম্য বাড়ছে  দুষ্কৃতীদের
রাতের শহরে দৌরাত্ম্য বাড়ছে দুষ্কৃতীদের

অভিযোগ, এলাকার স্থানীয় ট্যাক্সিচালক মহম্মদ আরজু, বোমাবাজির প্রতিবাদ করায় তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় টিপু ও তার দলবল। এরপরই সেখান থেকে পালিয়ে যায় তারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ।

আহত আরজুকে চিত্তরঞ্জন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আপাতত তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানানো হয়েছে। এদিকে, ঘটনাস্থানে এসে বোমাটি উদ্ধার করে তা নিষ্ক্রিয় করে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই দুই দুষ্কৃতী দলের মধ্যে ঝামেলায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এন্টালি। গুলিবিদ্ধ হয় একজন। ডান পায়ে গুলি লাগে। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিল তীর গোর্খা নামে এক দুষ্কৃতী। পরে তাকে গ্রেপ্তার করে এন্টালি থানার পুলিশ। তারও আগে ২৩ জানুয়ারি মতিঝিল এলাকায় তোলাবাজির ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায়। আহত হয় পুলিশও। সেখানেও নাম জড়িয়েছিল গোর্খার।

চলতি বছরের জানুয়ারিতেই প্রোমোটিং বিবাদের জেরে কড়েয়ায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় এক ব্যক্তির। মৃতের নাম আতিকুর রহমান। অভিযুক্ত শেখ ইদ্রিস ওরফে ভোলা। ১৩ জানুয়ারি গভীররাতে কসবার রাজডাঙা মেন রোডে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। অভিযোগ ওঠে স্থানীয় দুষ্কৃতী মুন্না পান্ডের বিরুদ্ধে।

এভাবে একের পর এক দুষ্কৃতী দৌরাত্ম্যের ঘটনায় চিন্তার ভাঁজ কলকাতাবাসীর কপালে। পুলিশের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উঠে আসছে। যদিও কলকাতা পুলিশের তরফে সবকটি ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানানো হয়েছে।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *