প্রসাসনের চোখ এড়িয়ে খুলি কেনাবেচা

SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

ওয়েব ডেস্ক : যে জিনিসের ছবি আমরা বিপদ বোঝাতে ব্যবহার করি তা কিনা হাতে হাতে! টাকা দিলেই মিলবে! মাথার খুলি। অবাক লাগলেও এমনি ঘটনা ঘটছে তারাপীঠ মহা শ্বশানে।

বাংলার অন্যতম ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান তথা সতীপীঠ তারাপীঠ। এখানকার মহা শ্বশান তন্ত্রসাধনার জন্যও বিখ্যাত। সেখানেই এক থেকে দেড় হাজার টাকার বিনিময়ে অনায়াসেই পাওয়া যাচ্ছে মানুষের মাথার খুলি। তন্ত্র সাধনার ক্ষেত্রে জরুরি উপাদান মানুষের মাথার খুলি, যা পুরোনো হয়ে গেলে ফল পাওয়া যায়না। তাই তন্ত্র সাধকরা অর্থের বিনিময়ে পাটুনিদের থেকে কিনছেন সেই খুলি।

images-8

কিন্তু কিভাবে মিলছে এতো খুলি? রামপুরহাট সহ সমগ্র বীরভুমের মানুষ শৎকারের জন্য আসেন তারাপীঠ মহাশ্বশানে। কেউ দাহ করেন, কেউ কবর দেন। সেই কবর দেওয়া দেহগুলিকে বেশ কিছুদিন পর মাটি খুঁড়ে বার করা হয় খুলি। মৃত মানুষের দেহ নিয়ে চলছে দেদার ব্যবসা। টাকা দিলেই নিয়ে যাওয়া হবে শ্বশানের পেছনে। হাতে হাতে মিলবে প্যাকেট বন্দি খুলি। চাহিদার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দাম।

তারাপীঠ শ্বশানের সাধু নীলগিরি মহারাজ জানালেন কিভাবে ব্যবহার হয় খুলি? মহার্ঘ সেই পদ্ধতি। খুলিগুলোকে মদ দিয়ে পরিষ্কার করা হয়, মদের মধ্যে ডুবিয়ে রেখে তারপর মদ দিয়ে ধোয়া হয়। নিয়মিত পুজো করতে হয়, অন্যথায় বিপদ সাধকেরই। ভুত ছাড়ানো, দাম্পত্য কলহ দূর করতে কাজে লাগে খুলি এবং ভালো ফল দেয় খুলি দিয়ে সাধনায়।

তারাপীঠ শ্বশানে রম্রমিয়ে চলছে খুলি ব্যবসা। নির্বিকার প্রসাশম। যদিও প্রসাশন কিছু জানেনা বলেই মত প্রসাশনের একাংশের। পাটুনি ও সাধুদের মধ্যে চলছে এই বেআইনি কারবার। এভাবে খুলি বিক্রি করা বেআইনি কাজ বলেই মনে করছেন অনেকে। পাটুনি থেকে সাধু, সকলেরই মুখে কুলুপ।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *