সাংবাদিকতাকে কেরিয়ার হিসাবে বেছে নিতে কি করবে??

লাইভ সম্প্রচার করতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু এক সাংবাদিক।
Notice: Undefined offset: 0 in /home/khasskh/public_html/wp-content/plugins/techlineinfo-social-count/msssh.php on line 21

Notice: Undefined offset: 0 in /home/khasskh/public_html/wp-content/plugins/techlineinfo-social-count/msssh.php on line 21
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা। একদিকে যেরকম গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের হাতছানি ঠিক তেমনই বিশাল স্যোশাল রেপুটেশন আমাদেরকে এই পেশা বেছে নিতে প্রলুব্ধ করে। উচ্চমাধ্যমিকের পর অনেকেই স্নাতক স্তরে এবং স্নাতকোত্তরস্তরে সাংবাদিকতা নিয়ে পড়াশুনা করেন। স্নাতক স্তরে সাংবাদিকতা নিয়ে পড়া কালীন ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে স্বপ্ন বিভোর থাকে। কিন্তু যতটা সহজ মনে করা হয় এই পেশাকে, বাস্তব চিত্র ততটাও সহজ নয়।

সমস্যাটা ঠিক কোথায়?
প্রতি বছর ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি, স্টেট ইউনিভার্সিটি, ও অন্যান্য ইউনিভারসিটি থেকে স্নাতক স্তরেই পাশ করে প্রায় ৫০০০ ছাত্রছাত্রী। এরপর রয়েছে স্নাতকোত্তর এবং ডিপ্লোমা। সব মিলিয়ে সংখ্যাটা পৌছায় ৭০০০ এর কাছাকাছি। কিন্তু সারা বছরে মোট চাকরির সুযোগ, সব সংবাদ মাধ্যম মিলিয়ে , থাকে ১৫০- ২০০ টি।

এই বিপুল সংখ্যক ছাত্রছাত্রী এই সামান্য কয়েকটি পোস্টের জন্য প্রতিযোগীতায় নামেন। স্বাভাবিকভাবেই Survival of the fittest নীতিতে যে সর্বোশ্রেষ্ঠ সেই সূ্যোগ পায়। লড়াইটা হয় প্রতি ইঞ্চিতে এবং প্রতি মূহুর্তে।

তাহলে করনীয় কি?

লড়াইটা কঠিন তবে অসম্ভব নয়। তাই হাল ছাড়াও উচিৎ নয়। আমাদের স্পষ্ট ভাবে জানতে হবে আমরা কি শিখছি এবং তা কতটা কাজে লাগবে এবং আর কি কি অভ্যেস করতে হবে। এপ্রসঙ্গে প্রথমেই বলে রাখা ভাল টেক্সট বই মুখস্ত করে সাংবাদিক হওয়া যায়না, সেটা লাগে কলেজের পরীক্ষায় মার্কস পেতে। এটা দূর্ভাগ্যজন হলেও সত্যি। কলেজে যেটা করছি সেটা ব্যাকডেটেড এবং সেই টেকনোলজি কাজের ক্ষেত্রে বেশ অকেজো। সাংবাদিকতাকে কেরিয়ার হিসাবে বেছে নিতে গেলে অবশ্যই টেকনিক্যাল শিক্ষা নিতে হবে। কোনো ভাল প্রতিষ্ঠান থেকে একটি কর্মমুখী ট্রেনিং নেওয়া আবশ্যক। তবে এক্ষেত্রেও খেয়াল রাখতে হবে যে ব্যাবসায়ীক বিজ্ঞাপনের হাতছানিতে যেন আমরা না ভুলি। দেখে নিতে হবে যেখানে শিখছি সেখানে কি শেখাচ্ছে , কে বা কারা শেখাচ্ছে এবং চাকরির নিশ্চয়তা কতটা। বহু প্রতিষ্ঠান লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়েও চাকরি দিতে অপারগ।

ছাত্রছাত্রীদের তাই সাহায্য করতে এগিয়ে এলো ন্যাশানাল একাডেমি ফর মিডিয়ে এক্সিলেন্স এবং খাস খবর মিডিয়া। এদের যৌথ উদ্যোগে ৮ মাসের একটি কর্মমূখী ডিপ্লোমা প্রোগ্রাম করানো হচ্ছে। এখানে সম্পু্র্ন প্রাক্টিক্যালি রিপোর্টিং, প্রোডাকশন, নিউজ রিডিং , এংকারিং , আর .জে, পি. আর, এড প্রভিতির উপর বিশিষ্টদের দ্বারা ক্লাস করানো হয়। কোর্সের পর কোনো ইন্টারভিউ ছাড়া সরাসরি ইন্টার্নশিপ করানো হয় এবং ১০০ শতাংশ চাকরির ব্যাবস্থ্যা করা হয়। একমাত্র এখানেই বলা হয় যদি চাকরি না পাও তবে পুরো কোর্স ফিস ফেরত পাবে। সারা পশ্চিমবঙ্গে এই চ্যালাঞ্জ নেওয়ার সাহস আজ অবধি কেউ দেখায়নি। যদি বিজ্ঞাপনের চমকে যত্রতত্র ঘুরে সময় ও অর্থ অপচয় না করে নিশ্চিত চাকরি পেতে চাও তবে অবিলম্বে যোগাযোগ কর 9748294098 নম্বরে। ক্লাস শুরু হবে ২৮ এপ্রিল থেকে সপ্তাহে ২দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *