৪৬ টি বাজারে কাটা মাংস বিক্রির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি পুরসভার

ভাগাড়ের পচা মাংস দেওয়ার 'সিল' বারাসাতের রেস্টুরেন্ট
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

তরুনা মণ্ডল

ভাগাড় কারবারের সাথে সাথেই পাল্লা দিচ্ছে মরা মুরগির মাংস। দুপ্রকার আতঙ্কের জেরেই বেশিরভাগ সাধারণ মানুষ মাংস কেনা থেকে খাওয়া সবই এড়িয়ে যাচ্ছেন। এই আতঙ্ক কাটাতে তাই এবার আরও এক পদক্ষেপ নিল কলকাতা পুরসভা। বুধবার পুরসভার পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়; নিউমার্কেট, গড়িয়াহাট, পার্ক সার্কাস, এন্টালি সহ পুরসভার অঞ্চলভুক্ত মোট ৪৬ টি বাজারে কাটা ও বরফে সংরক্ষিত মাংস বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি হতে চলেছে। বৃহস্পতিবার পুরসভায় এবিষয়ে জরুরি বৈঠক করেন পুর কমিশনার খলিল আহমেদ, মেয়র পারিষদ, স্বাস্থ্য, ফুড সেফটি কমিশনার -সহ অন্য আধিকারিকরা।

৪৬ টি বাজারে কাটা মাংস বিক্রির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি পুরসভার
ছবি প্রতীকী

পুরসভার এই বৈঠকে যেসব সিদ্ধান্তগুলি নেওয়া হয়েছে সেগুলি হল:
~ কলকাতার ১৬টি বরোতে মিনি মেকানাইজড কসাইখানা করবে পুরসভা।
~ তবে শুরুতে আপাতত ৮টি বরোতে মিনি মেকানাইজড কসাইখানা করতে চলেছে।
~ প্রতিটির জন্য খরচ বরাদ্দ ১ কোটি টাকা।
~ এবিষয়ে পুরসভাকে বছরে ৩ কোটি টাকা মঞ্জুর রাজ্যের।
~ প্রতি বরোতে তৈরি হবে নজরদারি দল।
~ ২৪ ঘণ্টা বাজারে চলবে নজরদারি ও অভিযান।
~ কাজের সময়েরও পরিবর্তন করতে চলেছে পুরসভা।
~ ফুড সেফটি অফিসার ও ভেটেরিনারি অফিসারের শূন্যপদ পূরণ।

এছাড়াও জানা গিয়েছে, চিড়িয়াখানার পশুদের উচ্ছিষ্ট নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ায় এবিষয়েও সুনির্দিষ্ট অবস্থান নিয়েছে পুরসভা। তাঁরা জানিয়েছেন, বাজার থেকে পাওয়া মাংসের নমুনার ডি এন এ টেস্ট হবে কল্যাণী ও প্রাণিসম্পদ বিকাশ দফতরে। সূত্রের খবর, পাঁচ কোটি টাকা খরচ করে কলকাতায় তৈরি হবে উন্নত ল্যাবরেটরি। শনিবার এই নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক রয়েছে পুরসভার কর্মকর্তাদের মধ্যে। এছাড়া সরকারি আউটলেটেও মাংস পরীক্ষা করে পাঠানো হবে। এবং সেই মাংসের পরীক্ষা ঠিকমতো হচ্ছে কিনা, সেব্যাপারে তীক্ষ্ণ নজরদারি চালাবে প্রাণিসম্পদ বিকাশ দফতর।

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *