ভাতা না মেলায় হতে পারে আন্দোলন: পুরোহিত সম্প্রদায়

ভাতা না মেলায় হতে পারে আন্দোলন: পুরোহিত সম্প্রদায়
SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

ওয়েব ডেস্ক: সম্মেলনে যোগদান করলে মিলবে ভাতা, এমন আশাতেই ব্রাহ্মণ ও পুরোহিত সম্মেলনে গিয়েছিলেন হাজার হাজার পুরোহিত। তাদের কারও বাড়ি সিউড়ি, কারও বোলপুর, কারও আবার বর্ধমানের কেতুগ্রাম। কিন্তু, প্রাপ্তি বলতে কেবল হতাশাই। একপ্রকার খালি হাতেই ফিরতে হল তাদের। তবে প্রাপ্তির ঝুলিতে মিলেছে নামাবলী, গীতা, স্বামী বিবেকানন্দের অমৃতবাণী ও রামকৃষ্ণ, সারদা, বিবেকানন্দের ছবি।

ভাতা না মেলায় হতে পারে আন্দোলন: পুরোহিত সম্প্রদায়
ভাতা না মেলায় হতে পারে আন্দোলন: পুরোহিত সম্প্রদায়

সোমবার বোলপুরে একটি ব্রাহ্মণ ও পুরোহিত সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন কয়েক হাজার ব্রাহ্মণ ও পুরোহিত। আশা ছিল, তৃণমূলের এই সম্মেলন সভা থেকে ভাতার কথা ঘোষণা করা হবে।
কেতুগ্রামের উত্তর রাজুর গ্রাম থেকে সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন গৌতম চট্টোপাধ্যায়। গ্রাম্য দেবতা মহাদেবের নিত্যপুজো করেন।

তাঁদের কথায়, “আমরা গরিব মানুষ। পুজো করে খাই। আমাদের সব দলে যেতে হয়। এখন যেটা চালু, সেই আশায় আছি। যে যখন ক্ষমতায় আসে তার দিকে যেতে হয়। তবে কোনও দিন কোনও সুবিধা পাইনি। বিজেপি পুরোহিত সম্মেলন ডাকলে সেখানেও যাব। যদি কিছু পাই। আশা করে গিয়েছিলাম। কিন্তু কিছুই পেলাম না।”

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

প্রত্যেকের গলাতেই শোনা গেছে হতাশার সুর। বোলপুর পৌরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের নিচু পট্টির বাসিন্দা সাধন ঠাকুর বলেন, “কী পাব, তাও বুঝতে পারছি না। ব্রাহ্মণদের কিছুই নেই। আশা ছিল কিছু একটা পাব। কিন্তু কিছুই তো ঘোষণা করল না। সবাই আশায় ছিল।”
পানুরিয়ার তরুণ ভট্টাচার্যের বক্তব্যও একইরকম। তিনি বলেন, “পুরোহিত এমন পেশা, যেখানে উপার্জন কম। তাই নতুন প্রজন্ম এই পেশায় আসতে চাইছে না। অনেকে অনেক কিছু ভাতা পায়। কিন্তু ব্রাহ্মণদের দিকে সরকার কোনও নজর দেয়নি। আমরা আশা করেছিলাম ভাতা ঘোষণা করা হবে। কিন্তু সেটা হয়নি। ফলে আমরা হতাশ।” 

অনুষ্ঠান মঞ্চে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে ছিলেন তারাপীঠ কবিচন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ পরমহংস আশ্রমের মহারাজ হংসানন্দজি মহারাজ ওরফে মঙ্গলবাবা। বলেন, “ চেয়েছিলাম পুরোহিতদের কিছু একটা ব্যবস্থা হোক। কিন্তু সভাতে সেরকম কিছুই ঘোষণা হল না। আমরা ১৫ দিন অপেক্ষা করব। তারপরও যদি পুরোহিতদের জন্য কিছু না হয়, তাহলে আমরা আলোচনা করে আন্দোলনে নামব।”
হতাশাও যে মানুষকে আন্দোলনের পথে চালাতে পারে, তা হাজার হাজার হতাশ পুরোহিতের বক্তব্যে একপ্রকার স্পষ্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *