খড়গপুর কলেজে দুর্নীতির খবর করায় হুমকি খাস খবর এর সাংবাদিক কে

SHARES
Share on FacebookShareTweet on TwitterTweet

প্রলয় সামন্ত: খড়গপুর কলেজে শিল্পী আনা নিয়ে দ্বন্দ্ব। ছাত্রদের অভিযোগ যেখানে ৮০হাজার টাকা লাগার কথা সেখানে ২লক্ষ টাকা দেওয়া হয়েছে। যখন নির্বাচিত সদস্য ইরফান এই বিষয়ে কথা তোলেন সেই কথার উত্তরে কোনো কথা বলতে চাননি কলেজ কর্তৃপক্ষ।

খড়গপুর কলেজে দুর্নীতির খবর করায় হুমকি খাস খবর এর সাংবাদিক কে।
খড়গপুর কলেজে দুর্নীতির খবর করায় হুমকি খাস খবর এর সাংবাদিক কে।

প্রিন্সিপাল কোনো হিসাব দেখাতে পারছেননা।ছাত্রদের সাথে কোনো কোথাও বলতে চাইছেনা। এদিকে ক্যামেরার সামনেও কোনো ভাবেই মুখ খুলতে চাননি প্রিন্সিপাল। তার মানে এই ঘটনায় কি প্রিন্সিপালের হাত রয়েছে? কেন প্রিন্সিপাল কোনো কথা বলছেনা? কেন সংবাদ মাধ্যমকে ক্যামেরা বন্ধ করতে বললেন?প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। এখানেই শেষ নয়।প্রিন্সিপাল গৌতম সামন্ত খাস খবরের জেলা প্রতিনিধিকে বলেন, “ক্যামেরা বন্ধ করুন।বন্ধ না করলে খড়গপুর টাউন থানার বড়ো বাবু কে দিয়ে গ্রেপ্তার করিয়ে দেব।”

খড়গপুর কলেজে দুর্নীতির খবর করায় হুমকি খাস খবর এর সাংবাদিক কে।
খড়গপুর কলেজে দুর্নীতির খবর করায় হুমকি খাস খবর এর সাংবাদিক কে।

তার পাশাপাশি সাংবাদিকদের সাথে দুর্ব্যবহার করেন প্রিন্সিপাল গৌতম বাবু। ক্যামেরার সামনে প্রিন্সিপাল কিছু না বললেও সাংবাদিকদের আড়ালে আসতে বলেন তিনি। তার সাথে কিছু টাকা দেওয়ার প্রস্তাবও দেন।এই বিষয়ে প্রিসিপাল আড়ালে বলেন, “ওই ছাত্ররা মিথ্যে বলছে।কোনো প্রমাণ নেই ওদের কাছে।সবটাই ভিত্তিহীন।”

কিন্তু এই বিষয়ে ছাত্রদের বক্তব্য, “প্রিন্সিপাল এই বিপুল অঙ্কের টাকার কোনো হিসাব দিতে পারছেন না। আমাদের কাছে যথাযথ প্রমাণ রয়েছে।আমরা এই বিষয় নিয়ে সব ছাত্ররা প্রিন্সিপালের রুমে গেলে উনি আমাদের সাথে অকথ্য ভাষায় কথা বলেন এবং পুলিশ কে দিয়ে গ্রেপ্তার করানোর হুমকি দিতে থাকেন।আমাদের মুখবন্ধ করানোর চেষ্টা করছেন প্রিন্সিপাল।আমরা ছাত্র আমাদের অধিকার আছে জানার যে যেখানে ৮০ হাজার টাকায় শিল্পী আনা হচ্ছে সেখানে বাকি ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা কোথায়।কোনো হিসাব নেই প্রিন্সিপালের কাছে।শুধু উনি বলছেন আমাদের পরে দেখে নেবেন।”

ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *